মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০, ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


পঞ্চগড়ে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করল বড় ভাই

প্রকাশিত : ০৫:৩২ অপরাহ্ণ, ১৯ জুলাই ২০২০ রবিবার 13 বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :

পঞ্চগড়ে ছোট ভাই মোঃ জাহাঙ্গীরের স্ত্রী কে অস্ত্রের মুখে জোরপূর্বক ধর্ষণ করলো বড় ভাই  জাহিদুল ।পুরো এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে চাঞ্চল্য ।
পঞ্চগড় সদর উপজেলার অমর খানা ইউনিয়নের কাজিরহাট দক্ষিণ তালমা গ্রামে ছোট ভাই জাহাঙ্গীর (২৩) এর অন্তঃসত্ত্বা  স্ত্রীকে বাড়িতে একা পেয়ে  অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে বড় ভাই জাহিদুল (২৭)এর বিরূদ্ধে । গত বুধবার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী (১৯) কে বাড়িতে একা পেয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ঘরের ভিতরে অস্ত্রের মুখে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
জাহাঙ্গীর জাহিদুল এরা দুজনেই অমরখানা ইউনিয়নের কাজিরহাট দক্ষিণ তালমা গ্রামের আজিরুল ইসলামের ছেলে। জাহাঙ্গীর গত বছর পঞ্চগড় সাতমেরা ইউনিয়নের ফইপাড়া গ্রামের  ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ছবিরউদ্দিনের মেয়েকে বিয়ে করে।বিয়ের পর থেকেই জাহিদুলের খারাপ নজর  ছিলো তার উপর, হঠাৎ গত বুধবার জাহাঙ্গীরের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে বাড়িতে একা পেয়ে জাহিদুল অস্ত্রের মুখে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ ওই অন্তরসত্তা গৃহবধূর।
জাহিদুল নেশাগ্রস্ত বলেই তার স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়ার পর জাহিদুল এই ঘটনাটি ঘটায়। গৃহবধূ এখন বিচারের আশায় বাবার বাড়িতে অবস্থান করছেন। এ বিষয়ে গৃহবধুর স্বামী জাহাঙ্গীর এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন ধর্ষণ না করলে কেউ নিজের ব্যাপারে মিথ্যা বলতে পারে না । আমি এর একটা সঠিক বিচার চাই।
স্থানীয়রা বলেন অমর খানা ইউনিয়ন ও পার্শবর্তী হাঁড়িভাষা ইউনিয়নে এসব ঘটনা প্রায় ঘটে থাকে । এর প্রধান কারণ  আইনের আশ্রয় নিতে দেওয়া হয় না । স্থানীয় মাতব্বররা গ্রাম্য শালিশের মাধ্যমে অনেক বড় বড় ঘটনার সমাধান করে ।ফলে ভিকটিম ন্যায় বিচার পায়না । ইতিমধ্যে পঞ্চগড়ে গ্রাম্য শালিশে নির্যাতনের শিকার হয়ে ভিকটিম আত্মহত্যা করেছেন এরকম ঘটনাও ঘটেছে ।যদি ধর্ষণের বিচার স্থানীয় মাতব্বর ও ইউপি সদস্যরা করতে পারে তাহলে আদালত কিসের জন্য ।আর পুলিশেরি বা কাজ কি।এই বিষয়গুলো প্রশাসনকে গুরুত্ব সহকারে দেখতে অনুরোধ করেন অনেকেই ।
এ বিষয়ে অমরখানা ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান নুর এর  সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে যোগাযোগ করা সম্ভব হয় নি । তবে ধর্ষিতার বাবা জানান এ বিষয়ে চেয়ারম্যান বরাবরে একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে।ন্যায় বিচারের আশায় আছি ।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দর্পণ বাংলা'কে জানাতে ই-মেইল করুন। আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দর্পণ বাংলা'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দর্পণ বাংলা | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি | Developed by UNIK BD