শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


এ যুগের বড় সংকট করোনা মহামারী নয়, বরং আস্থা-বিশ্বাসহীনতা’র ব্যাধি

প্রকাশিত : ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ণ, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ রবিবার 41 বার পঠিত

মাশফাকুর রহমান কলামিস্ট :

এ যুগের বড় সংকট করোনা মহামারী নয়, বরং আস্থা-বিশ্বাসহীনতা’র ব্যাধি । মানুষের মধ্যে অজানা আশংকা,অনাস্থা ও বিশ্বাসের অভাব এ যুগের সব চেয়ে বড় সংকট বলে মনে হয় আমার কাছে। ভার্চুয়াল প্লাটফর্মের কল্যাণে ব্যক্তির আপাত পরিচয় বদলের মাত্রা এত বেশি যে, মানুষের প্রকৃত পরিচয়ের সন্ধান খুঁজে পাওয়া কঠিন । মানুষের অস্তিত্বের পরিচয় অনেকটা করোনা ভাইরাসের মিউটেশন এর মত দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে। এত প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন ও উন্নয়ন মানুষে মানুষে বিভিন্ন প্রগাঢ় কিংবা ঠুনকো পরিচয়ে নিকটে আনছে বটে,অবয়বের ভেতরের প্রকৃত মানুষের মধ্যে যুগপৎ মেলবন্ধন ও যোগাযোগ ঘটছে সামান্যই।
এটাও তো সত্য,এ প্রজন্মের মানুষ খুবই অল্প সময়ের ব্যবধানে এত বেশি পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। আর্থ-সামাজিক, সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলসহ এ গ্রহের ব্যক্তির সাথে ব্যক্তির যোগাযোগের প্রকৃতি,সময় ও ধরণ-এ অকল্পনীয় পরিবর্তন সূচিত হয়েছে।
এ যুগের মানুষই প্রায় এক প্রজন্মেই যোগাযোগ ও সম্পর্কের মৌলিক নিয়ামকগুলোর ডিজিটাল ট্রান্সফর্মেরশনের বৈপ্লবিক অগ্রযাত্রা’র কালের সাক্ষী। ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ মানেই,কিন্তু ভেতরের সম্পর্কের কাছাকাছি আসা নয়। মানুষের নিকটবর্তী হবার প্রকৃত উদ্দেশ্য,পথ ও পন্থায় ব্যাপক পরিবর্তনের ভিড়ে সম্পর্ক দাঁড়াতে পারছে না। কেন যেন, ব্যক্তির মূল অস্তিত্ব ও আসল পরিচয়ের চেয়ে বাহ্যিক পরিচয় মূল ভিত্তি হয়ে দাড়াচ্ছে। অনেকের ভিড়ে অদৃশ্য দেয়ালে সীমিত হয়ে থাকতে হচ্ছে। ভার্চুয়াল মানব অস্তিত্বের ঠিকানা বিহীন জীবন যাপনের পরিবর্তন ও তথাকথিত উন্নয়নের মধ্যেই আটকে পড়ছে মানুষের লক্ষ্য।
বলা চলে,ডিজিটাল যুগের অস্তিত্বহীন সম্পর্কের সীমা অসীম হলেও অজানা একাকিত্বের মধ্যে ডুবে আছে ভার্চুয়াল মানুষের কামনা-বাসনা। বাইরের রুপের পরিবর্তনের সাথে তাল মেলাতে মেলাতে ভেতরের দর্পনে তাকিয়ে দেখার অবসর নেই ? এত ব্যস্ত!
ব্যস্ততার মধ্যে স্বল্পতম সময়ে যদিও অনেকে সফলতা পাচ্ছে। প্রকৃত বিচারে আপেক্ষিক সফলতাঅর্থ দিন শেষে জীবন-কে স্বার্থক করতে পারছে কি’না বলতে পারি না।
চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা’র মধ্যে পার্থক্য বেশ।চিন্তার অসীমতায় বিবেকের স্বাধীনতার সংকীর্ণ বসবাস। ব্যক্তির প্রকৃত অস্তিত্বের মধ্যে আস্থা-বিশ্বাসের সম্পর্ক গড়ে উঠছে কালেভদ্রে। অনেক সূত্রেই আমরা মিলছি,কিন্তু সত্যিকারের সম্পর্কের সুতো আঁটছে না। যোগাযোগ বাড়লেও, মানুষ এর উপর মানুষের আস্থা বাড়ছে না,বরং কমছে জ্যামিতিক হারে। কাছে থেকেও দূরে! বিশ্বাস রাখতে পারছে না,আবার অতি আপন কাউ-কে সহজেই অবিশ্বাস করছে । এটা বিরাট মহামারী।
অনাস্থা আমাদের সম্ভাবনাময় পৃথিবীর মানব মনের প্রশান্তির অন্যতম প্রধান বাধা। মানুষের কাছে মানুষের ভিড়ের আসল মত,পথ,কামনা-বাসনার সন্ধান পাওয়া খুবই কঠিন এ যুগে। মানে মতলব বোঝা কঠিন।মূলত, আস্থা ও বিশ্বাসহীনতা’র মহামারী ভাইরাসে আমরা প্রায় সকলেই আক্রান্ত । সময় বয়ে যাচ্ছে,আমরা তার স্রোতে ভাসছি। এ যুগে অনেকের কাছে জীবন যাপন বলতে কেবল বেঁচে থাকা,আবার অনেকের কাছে জীবনের মানে অন্যরকম। এমন অশুভ সময়ে করোনাভাইরাস এই অস্তিত্বহীন সম্পর্ক কে ফিরে দেখার অবসর দিয়েছে। জীবনের প্রকৃত সম্ভাবনা’র প্রশ্নের উত্তর যোগাযোগের বিস্তৃতি না’কি সংকীর্ণতা, সেটাও ভেবে দেখা দরকার হয়তো। বাঁধণহীন সম্পর্ক নিয়ে বেঁচে থাকা মানে আসলেই জীবন কি’না সেই প্রশ্নের উত্তর মেলানোটাও জরুরী।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দর্পণ বাংলা'কে জানাতে ই-মেইল করুন। আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দর্পণ বাংলা'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দর্পণ বাংলা | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি | Developed by UNIK BD